এবার মালয়েশিয়ার পুলিশকে ঘুষ দিতে গিয়ে গ্রেফতার দুই বাংলাদেশি (বিস্তারিত)

 


গতকাল ১৫ই সেপ্টেম্বর আটক হওয়া থেকে মুক্তি পেতে ২ বাংলাদেশী এবং ১ রোহিঙ্গা একজন পুলিশ অফিসারকে ঘূষ দিতে গিয়ে উভয়েই সমস্যায় পড়েছেন। মালয়েশিয়ার জোহর রাজ্যের উলু তিরাম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।


 ৩০ বছর বয়সী ঐ প্রবাসী বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা একটি গাড়ি চালিয়ে আসার পথে জেপিজে পুলিশ অফিসার তাদেরকে চেক পোস্টে থামান। গতকাল দুপুর ১২.৩০ মিনিটের সময় তাদের চেক করার উদ্দেশ্য করে গাড়িটা থামানো হয়েছিল। 

 

উক্ত এলাকার দায়িত্ব প্রাপ্ত পুলিশ সুপার ইসমাইল দোলাহ আজ এক বিবৃতিতে বলেছেন, “তদন্তে জানা গেছে যে বাংলাদেশী সন্দেহভাজনদের মধ্যে একজনের ভুয়া আইকার্ড ছিল এবং অন্য বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গার কাগজপত্রও সন্দেহ জনক ছিলো। তিনি বলেন, তাদের তিন জনকেই আটক করে উলু তিরাম থানায় নিয়ে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।


ইসমাইল জানান, ৩০ বছর বয়সী বাংলাদেশী তাদের বিরুদ্ধে রিপোর্ট দায়েরকারী পুলিশ অফিসারের কাছে গ্রেপ্তার থেকে মুক্তি পেতে নগদ 1000 রিঙ্গিত অফার করেছিলেন। তারা বারবার করে পুলিশ অফিসারকে ঘূষ নিয়ে তাদের ছেড়ে দিতে বলেন। অফিসার তাদেরকে বারবার সতর্ক করার পরেও তারা জোর করে অফিসারের হাতে ৫০ রিঙ্গিত এর ২০ নোট দিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন তিনি।


এই ঘূষ প্রদানকারী বাংলাদেশীটিকে তার পর থেকে দূর্নীতি দমন কমিশন (এমএসিসি) আইন ২০০৯ এর ধারা ১৭ (বি) এর অধীনে পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশনের (এমএসিসি) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে এবং ঘুষের অর্থ জব্দ করা হয়েছে।


ইসমাইল জানান, অপর দুই বিদেশীকে ১৫ (১) (গ) অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৩ এর অধীনে আরও তদন্তের জন্য কোটা তিঙ্গি জেলা পুলিশ দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছিল।

No comments

Theme images by Dizzo. Powered by Blogger.