মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের তীব্র সমালোচনা করেছেন মানবসম্পদ মন্ত্রী সারাভানান

0
12

বাংলাদেশ হতে মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগের জন্য চাকরির খোঁজ নামে একটি জব পোর্টাল চালু করে বাংলাদেশ হাইকমিশন। এই জব পোর্টাল চালুর বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনা ও বিরুপ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী।

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান বলেছেন, এই পদক্ষেপটি একয়ি দায়িত্বহীন এবং বিদেশি মিশনের ভূমিকার পরিপন্থী। তিনি বলেন, বাংলাদেশ হাইকমিশন তার মন্ত্রনালয়ের সাথে পরামর্শ বা আলোচনা করেনি এবং এর পদক্ষেপগুলি মালয়েশিয়াতে বিদেশী কর্মীদের চাহিদা পরিচালনার জন্য আমাদের প্রচেষ্টাকে ক্ষুন্ন করেছে।

তিনি বলেছিলেন, “চাকরির খোজ” পোর্টালটি দাবি করেছে যে এখানে ইতিমধ্যে অবৈধ বাংলাদেশীদের সহায়তা করা হচ্ছে। আমার মন্ত্রণালয়ের সাথে পূর্ব পরামর্শ ছাড়াই কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য চাকরির খোঁজ পোর্টাল চালু করেছে হাইকমিশন তাতে আমি খুবই হতবাক।

হাই কমিশনের পক্ষ থেকে এই জাতীয় পদক্ষেপ নেওয়া অযৌক্তিক যে কোনও বিদেশী কূটনৈতিক মিশনের ভূমিকা ও দায়িত্বের পরিপন্থী। আমি এই বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছি কারণ এটি জনসাধারণকে, বিশেষত স্থানীয় নিয়োগকারীদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে পারে।

সারাভানান বলেছিলেন যে, হাইকমিশনের দাবি যে,গত ৮ই এপ্রিল এই জব পোর্টালটি চালু করেছে যে তারা মালয়েশিয়ার কোম্পানি মালিকদের বা নিয়োগকারীদের বাংলাদেশী কর্মী নিয়োগের জন্য সক্ষম করতে এবং পাশাপাশি রি-ক্যালিব্রেশন প্রোগ্রামের মাধ্যমে অনিবন্ধিত বা অবৈধ কর্মীদের নিয়োগের ক্ষেত্রে সহায়তা করতে চায়।

তিনি বলেন, দেশের ৪ শতাধিক বিদেশী কর্মী সংস্থাকে হুমকির পাশাপাশি এই পদক্ষেপের ফলে এখানে বাংলাদেশি অবৈধদের আগমন ঘটতে পারে।

সারাভানান ব্যাখ্যা করেছিলেন যে তাঁর মন্ত্রনালয় মাইফিউশনজবস নামে জাতীয় কর্মসংস্থান পোর্টাল পরিচালনা করে যা দেশীয় চাকরির শূন্যপদের বিজ্ঞাপন দেয় এবং বিদেশী কর্মী ও প্রবাসীদের নিয়োগও পরিচালনা করে।
a hr<ef=”https://shopee.com.my/Pran-Puffed-Rice-(Bertih-Beras-Bubble-Rice)-200gm-400gm-i.172673601.2848015058″>

তিনি বলেন, মানবসম্পদ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের মধ্যে একটি কর্মসূচি যা গত বছরের ১লা নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছিল এবং ৩০ শে জুনে শেষ হওয়ার কথা ছিল, বিক্রেতাদের বা তৃতীয় পক্ষের জড়িত না হয়ে সরকারী সংস্থা ও নিয়োগকারীদের দ্বারা এই কর্মসূচি কার্যকর করা হয়েছিল।

মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত ব্যাংলাদেশের হাই কমিশনার মোঃ গোলাম সরোয়ারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, চাকরির খোঁজ’ জব পোর্টালটি অবৈধ প্রবাসীদের পছন্দ মতো নিয়োগকর্তা খুঁজে রিক্যালিব্রেশনে বৈধতা গ্রহণ করতে মালয়েশিয়া সরকারকে সহযোগিতা করবে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির বাংলাদেশি হাইকমিশনার মো. গোলাম সারওয়ার।

“হাইকমিশনার বলেন, রিক্যালিব্রেশন নামে এ প্রক্রিয়া সফল করতে ইমিগ্রেশন ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একাধিক বৈঠক হয় হাইকমিশনের। যেখানে চলমান বৈধকরণ প্রক্রিয়াকে সফল করতে সহযোগিতাও চাওয়া হয় দেশটির পক্ষে। এ কারনেই জব পোর্টালটি চালু করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন হাইকমিশনার গোলাম সারওয়ার।

তিনি বলেন, অনেক মালয়েশিয়ান কোম্পানি’র মালিক রিক্যালিব্রেশন প্রক্রিয়ায় বৈধতার জন্য কাগজপত্রবিহীন বাংলাদেশিদের খুঁজে একত্রিত করার একটি উপযুক্ত পদ্ধতি চালুর অনুরোধ জানায় হাইকমিশনকে। এর মাধ্যমে মালিক-শ্রমিকের সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করবে। এ প্রক্রিয়ায় হাইকমিশন কোনো তৃতীয় পক্ষও রাখেনি।

পোর্টালটি বাংলাদেশ হাইকমিশন তাদের দায়িত্ববোধ থেকে মালয়েশিয়ায় বসবাস করা বাংলাদেশিদের কল্যাণে চালু করেছে বলেও জানান হাইকমিশনার। এ সময় মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়ের নিয়ম মেনে বাংলাদেশ থেকে নতুন করে শ্রমিক আনার ব্যাপারে খুব শিগগিরই একটি ফলাফল আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন গোলাম সারওয়ার।

মোঃ গোলাম বলেন, পোর্টালের ভার্চুয়াল উদ্ভোদনকালে শ্রম উপ-মহাপরিচালক পাশাপাশি বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় সরকারের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here