কুয়ালালামপুরে যে ৪টি এলাকার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি

0
0

মালয়েশিয়ার ফেডারেল টেরিটরি কুয়ালালামপুর এর চারটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানকে মারাত্মক ঝুকিপূর্ণ রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এসব এলাকায় জনসাধারণের মুভমেন্ট কন্ট্রোল বা চলাচলের উপর বিধিনিষেধ খুবই কড়াকড়িভাবে তদারকি করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।  ফেডারেল টেরিটরিজ মন্ত্রী তান সেরি আনুয়ার মুসা বলেছেন, এই অঞ্চলগুলি হল লেমবাহ পানতাই সংসদীয় এলাকা, তিতিওয়াংসা, কেপুং এবং চেরাস। এই অঞ্চলগুলি কোভিড -১৯ এর জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে বিবেচনা করা হয়েছে। আনোয়ার মুসা তার ফেসবুক পেইজে একটি লাইভ ভিডিও বার্তার এক বিবৃতিতে বলেছেন, করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের বেশিরভাগ এই এলাকাগুলো থেকেই আক্রান্ত

 হয়েছে বিধায় বিশেষভাবে এই ৪টি স্থানে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিবিড় পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় কোভিড -১৯ রোগীদের চিকিৎসার জন্য কোয়ারেন্টাইন স্টেশন হিসাবে তার মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন লাবুয়ান সহ ১১ টি স্থান গেজেটভুক্ত করেছে। তিনি জানিয়েছেন যে, স্টেশনগুলি পৃথকভাবে আগামীকাল থেকে কার্যক্রম শুরু করবে। আনুয়ার আরও বলেন, মালয়েশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী (এমএএফ) এর ১৪১৩ সদস্য এবং তিন

শিফটে কর্মরত ১৫০০ পুলিশ সদস্যসহ 5,000 সদস্যকে ফেডারেল টেরিটরির বেশ কয়েকটি অংশে মোতায়েন করা হয়েছে যাতে করে এই মাসের শেষ দিক পর্যন্ত মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার বা গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ আদেশ অনুযায়ী সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বেষ্টনী গড়ে তোলা যায়।

আরও পড়ুন
?
শ্রমিকদের অধিকার রক্ষায় মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান মালিকদের যে হুশিয়ারি ও শ্রমিকদের যে আদেশগুলো দিয়েছেন। 
?
চলতি মাসেই ব্যাপকভাবে কমে গেছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স, হুমকির মুখে দেশের অর্থনীতি।

 তিনি আরও বলেন, এই মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার  চলাকালীন কুয়ালালামপুর সিটি কাউন্সিল (ডিবিকেএল) এর ১৫০০ জন কর্মকর্তা ও সদস্য গন মাঠে রয়েছেন। মালয়েশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর অতিরিক্ত জনবলের সাহায্যে আমরা নগরীর চারপাশের সড়কগুলোতে রোডব্লক ও চেক অয়েন্ট ৪০ টি থেকে ৫৮ টি পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছি। রোডব্লক চলাকালীন সময় জনসাধারণকে সহায়তা করার পাশাপাশি কোন ধরনের অপ্রয়োজনীয় চলাচল করলে সেক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন আইনশৃঙ্খলার কাজে নিয়োজিত সদস্যরা চৌকিট ব্রিকফিল্ড এবং সেলায়াংয়েও বিশেষ দায়িত্ব পালন করবে কারণ এই এলাকা গুলোতে বিদেশী ও দেশের লোকজনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের অনেক রেকর্ড রয়েছে। জনসাধারণের চলাচল অত্যন্ত কমিয়ে এই ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here