এবার জরুরী অবস্থা ঘোষণা করেছেন মালয়েশিয়ার রাজা

0
0
মালয়েশিয়ায় চলমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি রোধে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হিসেবে আগামী ১ আগস্ট পর্যন্ত দেশব্যাপী জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিয়েছেন মালয়েশিয়ার রাজা ইয়াং দি-পারতুয়ান আগং আল-সুলতান আব্দুল্লাহ রিয়াত উদ্দিন আল-মুস্তাফা বিল্লাহ শাহ।
Photo Credit: FMT

মালয়েশিয়ায় চলমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি রোধে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হিসেবে আগামী ১ আগস্ট পর্যন্ত দেশব্যাপী জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিয়েছেন মালয়েশিয়ার রাজা ইয়াং দি-পারতুয়ান আগং আল-সুলতান আব্দুল্লাহ রিয়াত উদ্দিন আল-মুস্তাফা বিল্লাহ শাহ।

মঙ্গলবার (১২ই জানুয়ারী) স্থানীয় সময় ১০ টার দিকে মালয়েশিয়ার রাজভবন ইসতানা নেগারার এক বিবৃতিতে
রয়্যাল হাউজের নিয়ন্ত্রক দাতু আহমদ ফাদিল শামসুদ্দিন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী তান শ্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন গতকাল আগংয়ের সাথে বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এদিকে রাজার প্রধান সচিব তান শ্রী মোহাম্মদ জুকি আলি, অ্যাটর্নি জেনারেল টান শ্রী ইদ্রুস হারুন, স্বাস্থ্য মহাপরিচালক তান শ্রী ডাঃ নূর হিশাম আবদুল্লাহ, নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান দাতু আবদুল গণি সাল্লেহ, পুলিশ পরিদর্শক তান শ্রী আবদুল হামিদ বদর এবং সশস্ত্র বাহিনী প্রধান টান শ্রী আফেন্ডি বুয়াং এর কাছ থেকে এই বিষয়ে ব্রিফিং পেয়েছেন সেই সাথে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে দেশের আইন প্রয়োগকারী ও শাসক সংস্থা গুলোর প্রধানদের সাথে আলোচনা করা হয়েছে।

মালয়েশিয়ার ফেডারেল সংবিধানের ১৫০ (১) অনুচ্ছেদে জরুরী ঘোষণাপত্র আহ্বান করা হয়েছিল যাতে বলা হয়েছে যে মহামহিম রাজা যদি সম্মত হন যে দেশের সুরক্ষা বা অর্থনৈতিক জীবন, বা ফেডারেশনে বা সরকারী শৃঙ্খলা রক্ষায় কোন গুরুতর কোন অবস্থা সৃষ্টি হয় তখন তিনি তাকে এই আহ্বান জানাতে পারেন।

জরুরি অবস্থা শেষ হবে কিনা তা নির্ধারণের জন্য সরকার ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্য এবং প্রাসঙ্গিক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে একটি জরুরি কমিটি গঠন করা হবে।

আগামীকাল থেকে দুই সপ্তাহের জন্য পুত্রাজায়া ঘোষিত দেশের ছয়টি রাজ্যে দ্বিতীয় দফায় লকডাউন ঘোষণার পরদিনই এই ডিক্রি জারি করা হয়েছে। তবে গত অক্টোবরে, মহিউদ্দিন তখন জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার জন্য আবেদন করেছিলেন, তবে রাজা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যে এর দরকার নেই।

মহিউদ্দিন গতকাল জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাকে ব্রেকিং পয়েন্টের নিকটে উদ্ধৃত করে কয়েকটি রাজ্যে এমসিও বা কঠোর লকডাউন এর দ্বিতীয় লড়াইয়ের ঘোষণা করেছিলেন।

এদিকে দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ২৩২ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৩৮ হাজার ২২৪ জন। এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৫৫৫ জন।

সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ১ লাখ ৯ হাজার ১১৫ জন। তবে দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে কোনো বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here